Life Style

৭টি অনলাইন ডেটিং অ্যাপস – (Best Dating Apps)

Best Dating Apps

সেরা ৭টি অনলাইন ডেটিং অ্যাপস: ইন্টারনেট মিডিয়া ও টেকনোলজির চরম বিকাশে অনলাইন ডেটিং এখন ভারতের মতো দেশে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। 

এই বিভিন্ন online dating apps গুলো কারোর সাথে ডেটিং-এর কন্সেপ্টে একটা অকল্পনীয় পরিবর্তন এনে দিয়েছে।  আগেকার দিনের মতো ‘ওল্ড-স্টাইল’ ট্রাডিশনাল ডেটিং-এর ধারণা এখন প্রায় উঠেই গেছে বলা চলে। 

এখনকার বেশিরভাগ মিলেনিয়ালস ও জেনারেশন-জি-এর মানুষদের মনে জায়গা করে নিয়েছে স্মার্টফোন ডেটিং অ্যাপ নামক পরিচিত এই নতুন প্রেম করার পন্থাটি। যেই অ্যাপগুলো ব্যবহার করে যেকোনো ব্যক্তি বন্ধু তৈরি করতে পারে বা পেয়ে যেতে পারে তার জীবনের সেই বিশেষ ভালোবাসার মানুষটিকে।

মূলত, এই ডেটিং অ্যাপগুলো সিঙ্গেল মানুষদেরকে নতুন-নতুন ব্যক্তিদের সাথে চ্যাট করতে ও হ্যাপি রিলেশনশিপ তৈরী করতে সহায়তা করার জন্যই ডিজাইন করা হয়েছে৷ 

এই অ্যাপগুলো ব্যবহারকারীদের সেম ইন্টারেস্ট ও পছন্দ-অপন্দের ভিত্তিতে তাদেরকে, তাদের আশেপাশে ও দূরে থাকা ভৌগলিক অবস্থানে উপস্থিত লক্ষ লক্ষ মানুষের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দিতে পারে৷ 

এই অ্যাপ্লিকেশনগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার স্থানীয় এলাকার মধ্যে থাকা মানুষগুলোকেও খুঁজে পেতে পারেন। এদের মধ্যে বেশ কিছু অ্যাপ এমন কয়েকটি বিনামূল্যে ব্যবহার করতে দেয়, যা সিঙ্গেল ব্যক্তিদের সাথে দেখা করার সময় দীর্ঘ কথোপকথন চালু রাখতে সাহায্য করে থাকে।

চলুন, তাহলে জানা যাক, এখনকার সেরা সাতটি ডেটিং অ্যাপসের সম্বন্ধে –

সেরা ৭টি  অনলাইন ডেটিং অ্যাপস গুলোর তালিকা- (২০২২)

আপনি যদি এখনও সিঙ্গেল থাকেন, আর রিয়েল লাইফে পার্টনার খুঁজতে খুঁজতে বিরক্ত হয়ে গিয়ে থাকেন, তবে এই আর্টিকেলটি আপনাকে অনলাইন ডেটিং-এর মাধ্যমে আপনার জীবন সঙ্গীটিকে খুঁজে পেতে সাহায্য করবে। 

কারণ, আমরা আজকে আলোচনা করবো সেরা ৭টি online dating apps সম্পর্কে, যাতে আপনার অনলাইন ডেটিং-এর জার্নিটা মসৃণ ও মজাদার হয়। 

১. বাম্বল (Bumble):

এই অ্যাপটি ভারতের বহুল ব্যবহৃত ডেটিং অ্যাপগুলির মধ্যে অন্যতম। 

এটি আপনাকে অনলাইনে নতুন বন্ধু ও সুন্দর সম্পর্ক তৈরি করতে সাহায্য করে। বাম্বলে মহিলা সদস্যরাই সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। 

আর, এই অ্যাপটির সবথেকে অনন্য বৈশিষ্ট্য হল, যখন কোনো ম্যাচ খুঁজে পাওয়া যায় তখন কেবল একজন মহিলাই প্রথম কথোপকথন শুরু করতে পারেন। এর মানে, পুরুষ সদস্যরা এই অ্যাপটিতে প্রথমে চ্যাট শুরু করতে পারেন না। 

আর, যদি কোনো মহিলা সদস্য ম্যাচ রিকোয়েস্ট পাওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে চ্যাট শুরু না করেন, তবে রিকোয়েস্টটি ভ্যানিশ হয়ে যায়। তবে, সমকামী পার্টনারদের ক্ষেত্রে দুজনের মধ্যে যে কোনো একজন আগে কথোপকথন শুরু করতে পারেন। 

এই অ্যাপটির এই অনন্য বৈশিষ্ট্যটির জন্যে এটি ভারতীয় সমাজের সমস্ত স্টেরিওটাইপিং-কে ভেঙে তার ইউসারদের মন জয় করে নিয়েছে।বাম্বলের সবথেকে বড় সুবিধা হল, এখানে আপনি কোনো ফেইক প্রোফাইল খুঁজে পাবেন না। 

কারণ, রেজিস্ট্রেশনের সময় এটি ব্যবহারকারীর প্রোফাইল ফটো যাচাই করে তবেই প্রোফাইল ওপেন করতে দেয়।  আর, এর গোপনীয়তা নীতি অত্যন্ত বিশ্বাসযোগ্য।

তার সাথে, এটি নিরাপত্তা এবং গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য, আপনার কোনো প্রোফাইলকে সন্দেহজনক মনে হলে আপনি সহজেই আনম্যাচ, ব্লক বা রিপোর্ট করতে পারেন।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এটির ‘স্পটলাইট’ ফিচারটি (পেইড ফিচার) আপনার প্রোফাইলকে হাইলাইট করে আপনার প্রোফাইলের ভিসিবিলিটি ২০-গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে পারে। 
  • আর, এটি একটি বিনামূল্যের ডেটিং অ্যাপটি। 
  • এখানে মহিলারাই প্রথম চ্যাট শুরু করেন। 
  • এর ডেট, বীজ, ও বিএফএফ-এই তিন ধরণের মোড রয়েছে। 
  • আর, এটি সম্পূর্ণই জেন্ডার-নিউট্রাল। 

২. আইল (Aisle):

এই আইল ডেটিং প্ল্যাটফর্মটি বিশেষ করে ভারতীয় নাগরিকদের কথা মাথায় রেখেই সম্পূর্ণভাবে ভারতে ডিজাইন ও তৈরি করা হয়েছে। 

যদিও, এটি একটি অপেক্ষাকৃত নতুন অনলাইন ডেটিং অ্যাপ; তবে, অনেক ভারতীয়রাই সহজে এই প্ল্যাটফর্মে ভালো ডেট খুঁজে পেয়েছেন। 

এই প্ল্যাটফর্মটি রিয়েল কানেক্শনে ইচ্ছুক ব্যবহারকারীদের জন্য অত্যন্ত কার্যকর। শুধু ভারত থেকেই নয় বরং সারা বিশ্ব থেকেও আপনি আপনার প্রিয় ডেট খুঁজ দেখতে পারেন।

এই ডেটিং অ্যাপটি আপনাকে আপনার মাতৃভাষার উপর ভিত্তি করে অস্থায়ী ম্যাচগুলোর সাথে যুক্ত করে। এখানে রেজিস্টার করা অনেকটাই সোজা। আপনি এখানে আপনার আগ্রহ ও পছন্দ সম্পর্কে প্রাথমিক বিবরণ যোগ করে, আপনার শখগুলোকে ১-১০-এর মাত্রায় রেট করতে পারেন। 

তাই, এখানে আপনাকে খুব বেশি টাইপিং করতে হবে না। আর, আপনি যদি টাইপিং-এর ব্যাপারে অলস প্রকৃতির হন, তবে এই অ্যাপটিতে রেজিস্টার করতে আপনাকে বেশি খাটাখাটনি করতে হবে না।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এটিতে একটি “দেশি’স” বলে ফিচার রয়েছে, যেখানে আপনি সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা ভারতীয়দের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। 
  • এখানে আপনি বিনামূল্যে অন্য শহর না দেশ থেকে যেকোনো প্রোফাইল পছন্দ করতে পারেন। 
  • এই অ্যাপটির ইউসার ইন্টারফেসটি অনেকটাই সহজ। 

৩. ওকেকিউপিড (OkCupid):

সম্ভবত, এটি ভারতের সেরা ডেটিং অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি। 

এখানের ম্যাচগুলো ছবির উপর ভিত্তি না করে ব্যবহারকারীদের প্রশ্নের উত্তরের ভিত্তিতে করা হয়ে থাকে।

এই অ্যাপের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা সহজেই তাদের কমন ইন্টারেস্টের মাধ্যমে আপনাকে ম্যাচ হিসেবে খুঁজে বের করে। 

আর, এই অ্যাপের মেসেজিং ও ভার্চুয়াল ডেটিং ফিচারগুলো এটিকে খুবই জনপ্রিয় করে তুলেছে। 

আপনার প্রোফাইল সেট আপ করার সাথে সাথে কোনো বিশেষ ধরণের ব্যক্তি ও নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে আপনি কী ভাবেন, সেসব সম্পর্কে আপনাকে MCQ জিজ্ঞাসা করা হয়। 

আর,আপনার পছন্দ এবং আগ্রহের উপর ভিত্তি করে এই অ্যাপটি আপনি কার সাথে সবচেয়ে বেশি সংযুক্ত হবেন, সেটা বেছে নেয় আর এই প্রসেসের জন্য একটি ‘রেকমেন্ডেড’ সেকশন রয়েছে।

এছাড়াও, আপনি বিনামূল্যে আপনার পছন্দের লোকেশনের উপর ভিত্তি করে ম্যাচগুলো ব্রাউজ করতে পারেন। 

এখানে কোনো ধরণের বিরক্তিকর বিজ্ঞাপনও নেই, তাই এখানে আপনি একটি আনন্দদায়ক ডেটিং-এর অভিজ্ঞতা পাবেন।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এটি একটি বিনামূল্য ডেটিং প্লাটফর্ম। 
  • বিরক্তকারী ব্যবহারকারীদের সহজেই ব্লক করা যায়। 
  • এখানে কোনো বিজ্ঞাপন দেখানো হয় না।

৪. হ্যাপেন (Happen):

হ্যাপেন হল সম্পূর্ণ অনন্য একটি ডেটিং অ্যাপ। 

রাস্তাঘাটে চলতে-ফিরতে আমরা মাঝেমাঝেই কোনো মানুষের উপর হঠাৎ করেই ক্রাশ খাই।

আর, এখানেই এই অ্যাপটি যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করে। 

এটি আপনাকে সেইসব লোকেদের সাথে সংযুক্ত করে যাদের সাথে আপনার হঠাৎই পথে দেখা হয়েছে, আর আপনি তাদের উপর ক্রাশ খেয়েছেন। 

যদিও, মহামারীর সময়ে লোকজনের বাইরে বেরোনো কমে যাওয়ায় এই ডেটিং প্ল্যাটফর্মটি সাধারণ ডেটিং অ্যাপের মতো কাজ করেছে। 

তবে, এই বিশেষ ফিচারটিকে এখনও বন্ধ করে দেওয়া হয়নি। 

এর মাধ্যমে আপনি সেক্রেটলি সেই পথচলতি ক্রাশের প্রোফাইল লাইক করতে পারেন, আর তার বদলে সেই ক্রাশটিও যদি আপনার প্রোফাইল লাইক করে, তবেই আপনারা দুজনে চ্যাট শুরু করতে পারেন। 

নাহলে, অপর ব্যক্তি আপনার প্রোফাইল লাইক না করলে আপনার করা লাইকের ব্যাপারে সে জানতেও পারবে না। 

এই অ্যাপের আবার প্রিমিয়াম ভার্সনও রয়েছে।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • আপনার ক্রসিং ক্লাস্টারগুলো ভাগ করে নতুন নতুন লোকদের সাথে যুক্ত হতে পারেন, এমনকি তাদের সাথেও যুক্ত হতে পারে, যাদের আপনি প্রতিদিন দেখতে পান না। 
  • এটির ইউনিক টাইমলাইন ফিচারে আপনি সহজেই পথচলতি লোকেদের খুঁজে পেতে পারেন।

৫. হাইঞ্জ (Hinge):

ব্যবহারকারীদের আগ্রহ, ছবি ও পছন্দ ব্যক্ত করার জন্য এই অ্যাপের একটি অনন্য কাঠামো রয়েছে। 

যেকোনো ব্যবহারকারীর ট্যাগলাইন চেক করে, আপনি তাদের সাধারণ আগ্রহ সম্বন্ধে জানতে পারবেন ও পরে তাদের সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

এমনকি, আপনি যদি একজন নতুন ব্যবহারকারী হন, তবে অ্যাপটি খুব কম সময়ের মধ্যেই আপনার পছন্দগুলো বুঝতে ও সামঞ্জস্যপূর্ণ ফলাফল দেখাতে সক্ষম। 

এখানে একটি বিনামূল্য ও একটি পেইড সাবস্ক্রিপশনও রয়েছে। 

আর, এই অ্যাপটি মূলত এমন মানুষদের জন্য যারা ফিজিক্যাল এপিয়ারেন্সের চাইতে তাদের কমন ইন্টারেস্ট শেয়ার করতে বেশি পছন্দ করেন।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এর একটি অনন্য ও ইউসার-ফ্রেন্ডলি ইউসার ইন্টারফেস আছে। 
  • যেকোনো পিকচার ও বায়োতে লাইক ও কমেন্ট করা যায়। 
  • পেইড ভার্সনে সহজেই ফিচার্ড প্রোফাইলগুলোকে আলাদা করা যায়।

৬. টিন্ডার (Tinder):

টিন্ডার এই পুরো ডেটিং গেমের সূচনাকারী হলেও এখন তারা কম্পিটিশনে অনেকটাই পিছিয়েছে। 

আর, এটি একটি এমন ডেটিং অ্যাপ, যা প্রায় বেশিরভাগ দেশের লোকেদের কাছেই চেনা আর অন্তত একবার-না-একবার, কেউ-না-কেউ এটি ব্যবহারও করেছে। 

এখানে রেজিস্টার করে আপনি আপনার পছন্দের উপর ভিত্তি করে, কোনো প্রোফাইলকে রাইট সোয়াইপ করে ম্যাচ করতে পারেন বা লেফট সোয়াইপ করে ম্যাচ রিকোয়েস্ট মুছেও ফেলতে পারেন। 

বর্তমানে, ব্যবহারকারীদের কমন ইন্টারেস্ট জানার জন্যে এটি বিশেষ MCQ তৈরী করেছে।

তবে, এই টিন্ডারের জনপ্রিয়তা কমে যাওয়ার পিছনে রয়েছে ফেইক প্রোফাইলের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া। 

আর, এখানে ব্যবহারকারীদের অথেন্টিকেশনের নিশ্চিত কোনো ব্যবস্থা নেই। 

তা সত্ত্বেও, এই অ্যাপটি এখনও ভারতের সেরা ডেটিং অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি।

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এই ডেটিং অ্যাপের পারফরমেন্স অনবদ্য। 
  • খুব সহজেই ব্যবহার করা যায়। 
  • বিজ্ঞাপনের পরিমাণ অনেকটাই কম। 
  • ফ্রি ও প্রিমিয়াম দুটো ভার্সনই আছে।

৭. গ্রাইন্ডার (Grindr):

প্রধানত এলজিবিটিকিউ+ (LGBTQIA+) কম্যুনিটির জন্য তৈরি সারা বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় ডেটিং অ্যাপগুলির মধ্যে অন্যতম হল গ্রাইন্ডার। 

এখনকার সময়ে ভারতেও এই অ্যাপটি যথেষ্ট জনপ্রিয়তা পেয়েছে। 

গ্রাইন্ডার হল এমন একটা ডেটিং অ্যাপ, যা আপনাকে সুরক্ষিতভাবে আপনার আশপাশের বিভিন্ন কম্যুনিটিগুলোকে খুঁজে পেতে ও তাদের সাথে যোগাযোগ করতে সহায়তা করে। 

এখানে আপনি বিভিন্ন মানুষের সাথে চ্যাট করতে পারেন, আর আপনার লোকেশনের মধ্যে থাকা প্রোফাইলগুলো সার্চও করতে পারেন।

এছাড়াও, আপনার ফিডটিকে অনেক বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে আপনার পছন্দের ছবিগুলোতে বিভিন্ন ফিল্টারও ব্যবহার করতে পারেন৷ 

স্পেশ্যাল ফিচার:

  • এই অ্যাপটি বিভিন্ন সাবস্ক্রিপশন প্যাকেজ আছে, যেমন- ‘XTRA’ ও ‘আনলিমিটেড’। 
  • এই সাবস্ক্রিপশনের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই নানান মানুষের সাথে সংযুক্ত হতে পারবেন। 
  • সাবস্ক্রিপশনের ভিত্তিতেই আপনি চ্যাট করার অনেক বেশি অপশনস ও  ইনকগনিটো ফিচারগুলোর অ্যাক্সেস পেয়ে যাবেন।

পরিশেষে:

এর মধ্যে যেকোনো ডেটিং অ্যাপে যুক্ত হতে গেলে আপনাকে নির্দিষ্ট অ্যাপটি ইনস্টল করে সেখানে আপনার বয়স, লিঙ্গ, শখ, অভ্যাস, রুচি, আগ্রহ ইত্যাদি সম্পর্কিত সাধারণ তথ্যগুলো যোগ করে একটি আকর্ষণীয় প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। 

আপনি আপনার পছন্দের ডেটিং অ্যাপে প্রোফাইল তৈরি করে, সেখানে আপনি আপনার সোলমেট বা ক্যাসুয়াল পার্ন্টারের খোঁজ করতে পারেন। 

এখানে আপনি যেকোনো ম্যারিটাল স্টেটাস, সেক্সচুয়াল ওরিয়েন্টেশনের মানুষের খোঁজ করতে পারেন। 

ভারতজুড়ে বিভিন্ন দেশ গুলোতে বর্তমানে লক্ষ লক্ষ মানুষ এই অ্যাপগুলো ব্যবহার করে তাদের আগ্রহের ভিত্তিতে সঠিক পার্টনার খুঁজে পেয়েছেন। 

তাই, আপনাকেও আমরা ‘গুড লাক’ জানাচ্ছি, যাতে আপনিও পেয়ে যেতে পারেন, আপনার কাঙ্খিত জীবনসঙ্গীটিকে!

আমাদের আজকের আর্টিকেলটি এখানেই শেষ হল। লেখাটি ভালোলাগলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button