MOBILES LEAKSSmartphone News

চার বছরের মধ্যে শীর্ষ তিন ব্র্যান্ডে স্থান রিয়েলমির

চার বছরের মধ্যে শীর্ষ তিন ব্র্যান্ডে স্থান রিয়েলমির

চিপস্বল্পতার কারণে গত বছর যখন অনেক স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানি নতুন স্মার্টফোন উন্মোচন কমাতে বাধ্য হয়েছে, সেখানে সুযোগটি পুরোদমে গ্রহণ করেছে রিয়েলমি। কোয়ালকমের চিপসেটের ওপর ভর করে গত বছর স্মার্টফোনের সরবরাহ সচল রেখেছে চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা কোম্পানিটি। এতে প্রায় ৬০ কোটি স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর বাজারে চার বছরের মধ্যেই তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে রিয়েলমি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

সর্বশেষ প্রান্তিকে রিয়েলমির চেয়ে বেশি স্মার্টফোন বিক্রি করেছে স্যামসাং ও শাওমি। ভারতের মতো বাজারে শক্তিশালী অবস্থান নিতে অ্যাপলের মতো প্রযুক্তি জায়ান্ট যেখানে হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে অল্প সময়ের মধ্যেই শীর্ষ তিন ব্র্যান্ডে জায়গা করে নিয়ে ঈর্ষণীয় সফলতার পরিচয় দিয়েছে রিয়েলমি।

বছরখানেক ধরেই চীনা কোম্পানির বিরুদ্ধে নজরদারি বাড়িয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার। এশিয়ার দুই পরাশক্তির মধ্যে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্কে টানাপড়েন চললেও নীরবে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে রিয়েলমি ও শাওমির মতো কোম্পানি। এর পেছনে একটি কারণ হচ্ছে, মোদি সরকারের ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ নীতি অনুসরণ করে সব স্মার্টফোন ভারতেই উৎপাদন করা। এতে স্থানীয়দের কর্মসংস্থানে ভূমিকা রাখছে রিয়েলমি। ১০০ ডলারের কম দামের অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন আনার মাধ্যমে সাশ্রয়ী স্মার্টফোন বাজারে শক্তিশালী অবস্থান করে নিয়েছে রিয়েলমি।

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় ভারতের নীতিনির্ধারণী সংস্থা থেকে চাপের মুখে রয়েছে অ্যাপল, শাওমির মতো কোম্পানি। প্রতিদ্বন্দ্বীদের এ দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ভারতে ৪০ হাজারেরও বেশি স্টোর চালু করেছে রিয়েলমি। ১৮০ রুপি বা ১৩ হাজার ৯৯৯ রুপিতে রিয়েলমি ৮ ফাইভজি ফোন বাজারে এনেছে তারা। বর্তমানে যা সবচেয়ে সাশ্রয়ী ফাইভজি স্মার্টফোন। রিয়েলমির এ কৌশলের কারণে এ সেগমেন্টে মার খেয়েছে শাওমি ও স্যামসাংয়ের মতো বৈশ্বিক স্মার্টফোন জায়ান্ট।

কাউন্টারপয়েন্ট রিসার্চের প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ভারতের স্মার্টফোন বাজারের ১৬ শতাংশ হিস্যা ছিল রিয়েলমির। গত বছরের একই প্রান্তিকে যা ছিল ১১ শতাংশ। ভারতের বাজারে শীর্ষ দুই স্মার্টফোন বিক্রেতা কোম্পানি শাওমি ও স্যামসাংয়ের হিস্যা যথাক্রমে ২৩ ও ২০ শতাংশ।

চার বছরের মধ্যে ভারতের মতো বিশাল বাজারে তৃতীয় ব্র্যান্ড হিসেবে জায়গা করার পর আরো আগ্রাসী পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে রিয়েলমি। প্রধানমন্ত্রীর নিজ প্রদেশ গুজরাটের আহমেদাবাদে একটি বিশাল স্টোর চালু করে তারা। ১৩ হাজার বর্গফুটের স্টোরটি বিশ্বে রিয়েলমির প্রথম ফ্ল্যাগশিপ স্টোর, যেখানে কোম্পানিটির সব ধরনের পণ্য পাওয়া যাবে।

শুধু স্মার্টফোন নয়, ভারতের অ্যাসেম্বলি কারখানায় গত মাস থেকে ট্যাবলেট ও ল্যাপটপ তৈরি করতে যাচ্ছে রিয়েলমি। এছাড়া ওয়্যারলেস ইয়ারফোন তৈরিতে ভারতে ১০ কোটি রুপি বিনিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে তারা। ফলে পরবর্তী দুই বছরে রিয়েলমির বিক্রি ৫০ শতাংশ বাড়বে বলে আশা করছে চীনা প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button