Smartphone News

এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে যেভাবে বিরক্তিকর সময়কেও উপভোগ করবেন

এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে যেভাবে বিরক্তিকর সময়কেও উপভোগ করবেন

ভার্চুয়াল দুনিয়ায় প্রবেশের মূল চাবি হলো আমাদের হাতে থাকা স্মার্টফোনটি। সময়ের সাথে সাথে ফোন ব্যবহার বোরিং বা বিরক্তিকর মনে হতে পারে। তবে মনে রাখবেন, ফোন কিন্তু অনেক মজার ও গুরুত্বপূর্ণ কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে।

আপনার হাতের বাড়তি সময় কিংবা কোথাও অপেক্ষা করার সময়কে বিরক্তিকর মনে হচ্ছে? চিন্তার কোনো কারণ নেই, এই পোস্টে জানবেন অ্যান্ড্রয়েড ফোন দ্বারা করা যায় এমন কিছু মজার কাজ সম্পর্কে যা আপনার ফ্রি টাইমে করতে পারেন।

পারসোনালাইজেশন ও কাস্টমাইজেশন

অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে কাস্টমাইজেশন ও পারসোনালাইজেশন এর সর্বোচ্চ সুযোগ প্রদান করে অ্যান্ড্রয়েড। তাই আপনার অলস সময় কাটাতে পারেন ফোনের হোম স্ক্রিন, লক স্ক্রিন, আইকন, ট্রানজিশন, ওয়ালপেপার, সেটিংস, ইত্যাদি বিষয় নাড়াচাড়া করে।

কাস্টমাইজেশন নেক্সট লেভেলে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে থার্ড-পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করে। নোটিফিকেশন বার থেকে শুরু করে লক স্ক্রিন, অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্রায় সব ফিচার এডিট করার সুযোগ রয়েছে।

গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করা

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের এডভান্সড ফিচারগুলোর মধ্যে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট একটি। কিন্তু অনেক অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী এই ফিচারটিকে কাজে লাগান না। এই ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করে রিমাইন্ডার তৈরি, অন্য অ্যাপ নিয়ন্ত্রণ বা ফোন কাস্টমাইজ এর মত অসংখ্য মজার কাজ করা যায়।

গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট হতে পারে বিরক্তিকর সময় কাটানোর অসাধারণ এক সঙ্গী। এটি ব্যবহার করে গেমস খেলা বা গল্প শোনার মত বিভিন্ন টাস্ক করা যায়। এছাড়া গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টকে ইচ্ছামত যেকোনো প্রশ্ন করতে পারেন, নতুন ভাষা প্র্যাকটিস করতে পারেন।

অপ্রয়োজনীয় ছবি ডিলিট করা

স্মার্টফোনে প্রায় প্রতি মুহূর্তে আমরা অসংখ্য ছবি তুলছি ও ভিডিও রেকর্ড করছি। তবে সময় বের করে গাদাগাদা ছবি বা ভিডিও থেকে অপ্রয়োজনীয়গুলো আর ডিলিট করা হয়ে উঠেনা, যার ফলে ফোনের স্টোরেজ খুব শীঘ্রই ফুল হয়ে যায়। তাই সময় পেলে ফোনের গ্যালারি থেকে অপ্রয়োজনীয় ছবি ও ভিডিও ডিলিট করে স্টোরেজ খালি করা একটি বুদ্ধির কাজ হতে পারে।

মেইলিং লিস্ট থেকে আনসাবস্ক্রাইব করা

প্রতিদিন আমাদের ইমেইল ইনবক্সে অসংখ্য প্রোমোশনাল মেসেজ আসে, যার মধ্যে অধিকাংশ ইমেইল আমাদের কোনো কাজে আসেনা বা খোলার সময় হয়ে উঠেনা। অবসর সময়ে এসব ইমেইল চেক করে অপ্রয়োজনীয় ইমেইল চেইন বা নিউজলেটার থেকে আনসাবস্ক্রাইব করা যেতে পারে। এতে আপনার ইমেইল ইনবক্স গুছানো থাকবে ও সহজেই কাঙ্ক্ষিত বিষয় খুঁজে পাওয়া যাবে।

নতুন গেম ডাউনলোড করুন

আপনি যদি গেমস খেলতে পছন্দ করেন, তাহলে অবসর সময় কাটাতে পারেন প্লে স্টোরে নতুন গেম খেলে। প্রতিদিন প্লে স্টোরে অসংখ্য নতুন গেম আসে, যা খেলে বিনোদন পাওয়া যায়৷ এর মধ্যে কিছু গেম বন্ধুদের সাথে খেলা যায়, আবার কিছু গেম একলা খেলা যায়। গেমের বিভিন্ন এচিভমেন্ট ও লেভেল পার করে বিরক্তিকর সময়কে আনন্দময় করে তুলতে পারেন।

নতুন অ্যাপ ট্রাই করুন

গুগল প্লে স্টোরে ৪০টির অধিক ক্যাটাগরিতে অগণিত অ্যাপ রয়েছে। প্লে স্টোরে থাকা অসংখ্য অ্যাপের মধ্য থেকে নতুন নতুন অ্যাপ ইন্সটল করে ব্যবহার করতে পারেন। বিশেষ করে টপ রেটেড ও জনপ্রিয় অ্যাপগুলো ট্রাই করতে পারেন, হতে পারে এর মধ্যে আপনার নতুন পছন্দের অ্যাপ খুঁজে পেয়ে যাবেন।

প্রিয় বিষয়ে পড়ুন

অলস সময়ে নিজের প্রিয় বিষয় সম্পর্কে পড়া থেকে মজার কাজ আর কি বা হতে পারে! ইন্টারনেট এর কল্যাণে বর্তমানে পছন্দের যেকোনো টপিকে পড়া যাবে অসংখ্য আর্টিকেল। এছাড়া ইউটিউবে আপনার ইন্টারেস্ট আছে এমন বিষয়ে ভিডিও দেখে জানতে পারেন অনেক নতুন তথ্য। আবার গুগল নিউজ অ্যাপে ঢুঁ মারতে পারেন কোথায় কি ঘটছে তা জানতে। এছাড়া মিডিয়াম ও কোরা এর মত সাইটগুলো থেকে বিভিন্ন বিষয়ে অন্যদের লেখাও পড়তে পারেন।

নতুন ভাষা বা স্কিল শিখুন

বেকার সময় এর সবচেয়ে সুষ্ঠু ব্যবহার হতে পারে নতুন ভাষা বা স্কিল শেখার মাধ্যমে। নতুন ভাষা বা স্কিল শিখলে তা ভবিষ্যতে আপনার কোনো না কোনো কাজে আসবেই।

মডার্ন ওয়ার্কস্পেস হলো দক্ষতা-কেন্দ্রিক, যার ফলে কোথায় কোন দক্ষতা কাজে আসবে তা বলা মুশকিল। চাইলে ইউটিউব থেকে শিখতে পারেন পছন্দের যেকোনো বিষয়। এছাড়া স্কিলশেয়ার বা কোর্সেরার মত প্ল্যাটফর্ম থেকেও জ্ঞান আহরণ করতে পারেন নির্দিষ্ট বিষয়ে।

সোশ্যাল মিডিয়া আপডেট করুন

আমরা প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়া প্রতিদিন ব্যবহার করি, কিন্তু খুব কম সময় সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট আপডেট করা হয়৷ তাই ফ্রি টাইমে সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্যান্য অনলাইন একাউন্টে প্রদত্ত তথ্য আপডেট করতে পারেন। এছাড়া আগে পোস্ট করা বিভিন্ন ছবি বা পোস্ট খুঁজে নিয়ে স্মৃতিচারণও করতে পারেন। আবার অনাকাঙ্ক্ষিত পুরোনো কোনো পোস্ট থাকলে তা ডিলেট বা হাইড করে দিতে পারেন।

গুগল আর্থ ও স্ট্রিট ভিউ ঘুরে দেখুন

সময় কাটানোর অসাধারণ দুইটি টুল হতে পারে গুগল আর্থ ও গুগল স্ট্রিট ভিউ। গুগল স্ট্রিট ভিউ এর মাধ্যমে ঘরে বসে ৩৬০ডিগ্রি ভিউতে পুরো পৃথিবী ঘুরে দেখা যায়। অন্যদিকে গুগল আর্থ এর মাধ্যমে পৃথিবীর স্যাটেলাইট ভিউ দেখা যায়।

প্রয়োজনীয় ডাটা ক্লাউডে সেভ করুন

ক্লাউড স্টোরেজে নিজের প্রয়োজনীয় ডাটা সেভ করা হতে পারে ফ্রি টাইমের এক অসাধারণ ব্যবহার। গুগল ড্রাইভ এর ১৫জিবি স্টোরেজ এর পাশাপাশি অন্যান্য ক্লাউড স্টোরেজ সার্ভিস ব্যবহার করে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল, স্মৃতিযুক্ত ছবি, ইত্যাদি সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button