কম্পিউটারের ইতিহাস- The History of Computer Part 07

Posted on

কম্পিউটার বিষয়ক শব্দকোষ 

ওয়ান এম, টু এম- IM, 2M…

ইংরেজি M শব্দটি দিয়ে এখানে মেগাবাইট বােঝানাে হয়েছে। সুতরাং ১এম, ২এম, ইত্যাদি মানে ১-২-৩-৪ ইত্যাদি মেগাবাইট। কম্পিউটারের স্মৃতিশক্তি বা হার্ডডিস্ক, ফ্লপি ডিস্ক, অপটিক্যাল ডিস্ক ইত্যাদির ধারণ ক্ষমতা পরিমাপ করার জন্য এসব শব্দ ব্যবহৃত হয়। 

২৮৬.৩৮৬এসএক্স।286, 386SX..

486SX, 486Dx, 4086. 8084, 68000, 68020, 68030, 68040 ইত্যাদি এই সংখ্যাগুলাে মাইক্রোপ্রসেসরের পরিচয় বহন করে। প্রতিটি সংখ্যা দিয়েই ভিন্ন ভিন্ন ধরনের মাইক্রোপ্রসেসর বােঝানাে হয়ে থাকে। ৮৬ সংখ্যা দিয়ে শেষ করা প্রসেসরগুলাে ইনটেল তৈরি করে আর ৬৮ সংখ্যা দিয়ে শুরু করা প্রসেসরগুলাে মটরােলা তৈরি করে। 

৩৮৬ এনহেন্স মােড। 386 Enhanced Mode

মাইক্রোসফট উইন্ডােজ একটি ডস নির্ভর অপারেটিং সিস্টেমের নাম। এটি উইন্ডােজ স্ট্যান্ডার্ড বা এনহেন্সড় মােড়ে চালানাে যায়। আই.বি.এম. পি.সি.কম্পাটিবল কম্পিউটারে ৩৮৬ বা তার পরবর্তী প্রসেসর থাকলে এই মােডে উইন্ডােজ চালানাে যায়। এই মােড়ে ইউন্ডােজ চালানাের সময় কম্পিউটারের হার্ডডিস্কের স্মৃতিকেও র্যাম (স্থায়ী স্মৃতি শক্তি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। র্যাম ব্যবহৃত হয় সফটওয়্যার চালানাের জন্যে। এনহেন্সড মােড ব্যবহার করার ফলে উইন্ডােজ পরিবেশে একসঙ্গে একাধিক সফটওয়্যার চালানাে যেতে পারে। যদি এনহেন্সড় মােড় ব্যবহার না করা হয় তাহলে একসঙ্গে কেবল একটি সফটওয়্যার চালানাে যায় । এনহেন্সড মােড়ে যেহেতু হার্ড ডিস্কের স্মৃতিতে কাজে লাগানাে যায় তাই সফটওয়্যার অতিরিক্ত র্যাম পেতে পারে। মেকিনটোশ কম্পিউটারের সিস্টেম ৭.০-তেও এই সুযােগ রয়েছে। একে মেকিনটোশের ভাষায় ‘ভারচুয়াল মেমােরি’ বলে। 

৩.৫ ইঞ্চি ডি 3.5″ Disk

আজকের দিনের পার্সোনাল বা মাইক্রো কম্পিউটারে সচরাচর ৩.জাকারের ফ্লপি ডিস্ক ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিছুদিন আগেও এই আকারের ডিক কেবল মেকিনটোশ কম্পিউটারে ব্যবহার করা হতো। 

৮ বিট কম্পিউটার।8 Bit Computer

কম্পিউটারের হিসেবে ৮ বিটে একটি বাইট হয়। আবার ১টি অক্ষরও সচরাচর ৮ বিটের হয়। যেসব কম্পিউটারের সি.পি.ইউ, বা মাইক্রোপ্রসেসর একবারে ১টি 

অক্ষর বা ৮টি বিট গ্রহণ করতে পারে তাকে ৮ বিটের কম্পিউটার বলে। 

১৬ বিট কম্পিউটার৷16 Bit Computer

যেসব কম্পিউটারের সি.পি.ইউ, ২টি অক্ষর বা ১৬ বিট গ্রহণ করতে পারে তাকে 16 BitComputer কম্পিউটার বলে। একে ডবল বাইট কম্পিউটারও বলা হয়। 

৩২ বিটের কম্পিউটার 32 Bit Compute

যেসব কম্পিউটার ৩২টি বিট বা ৪টি অক্ষর একসঙ্গে গ্রহণ করতে পারে তাকে ৩২ বিট কম্পিউটার বলে। সাম্প্রতিককালে মেকিনটোশ এবং Windows ভিত্তিক পিসিতে ৩২ বিটের কম্পিউটিং প্রচলিত হয়েছে। 

এক্সেস ৷ Access

এক্সেস’ শব্দের অর্থ প্রবেশ। কম্পিউটারে সাধারণত এক্সেস’ বলতে ডিস্কের তথ্য অনুসন্ধানকে বােঝানাে হয়। কোনাে তথ্য ডেটাবেজ, নেটওয়ার্ক, কম্পিউটার সিস্টেম ইত্যাদিতে আসা-যাওয়াকে এক্সেস’ নামে বােঝানাে হয়। এক্সেস’ নামে মাইক্রোসফটের একটি ডিবেজ প্রােগ্রামও রয়েছে। 

এক্সেস টাইম।Access Time

ব্যবহারকারী এমন অনেক নির্দেশ দিয়ে থাকেন, যে নির্দেশের ভিত্তিতে অপারেটিং সিস্টেমকে ফ্লপি অথবা হার্ট ডিস্ক থেকে তথ্য আহরণ করে নিয়ে আসতে হয় । অপারেটিং সিস্টেম তথ্য আহরণের জন্যে ডিক্সে নির্দেশ পাঠানাের সময় থেকে ডিস্ক থেকে তথ্য আহরণ করে নিয়ে আসার মধ্যবর্তী সময়কে বলা হয় “এক্সেস টাইম (Access Time)। হার্ড ডিস্কের এক্সেস টাইম (Access Time) ৫ মাইক্রোসেকেন্ড (দ্রুত) থেকে ১০০ মাইক্রেসেকেন্ডের (মন্থর মধ্যে হয়ে থাকে। এক্সেস টাইমের ব্যবধান ব্যবহারকারীদের চোখে সাধারণত ধরা পড়ে না। কিন্তু ডাটাবেজ বা এ রকম কিছু প্রােগ্রাম ব্যবহার করার সময় এক্সেস টাইমের ব্যবধান বােঝা যায়। বড় বড় ফাইল নিয়ে কাজ করার সময়ও এই পার্থক্য বােঝা যায়। 

একাউন্টিং প্যাকেজ  Accounting Package

ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের হিসাব-নিকাশ করার জন্যে পার্সোনাল কম্পিউটারে এক ধরনের পূর্বপ্রস্তুতকৃত প্যাকেজ প্রােগ্রাম পাওয়া যায়। এগুলােকে একাউন্টিং প্যাকেজবলা হয়এসব প্যাকেজ প্রােগ্রামের সাহায্যে মালামালের হিসাব নিকাশ,ইনভয়েসিং, টাকা পরিশােধ, গ্রহণ, মালামালের বিক্রয় আদেশ প্রসেস করা, কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদির হিসাব, সম্পত্তির হিসাব, জব কস্টিং ইত্যাদি কাজ করা যায়। একাউন্ট্যান্ট ইনক, M.Y.0.B ডেইজি ইত্যাদি নামে একাউন্টিং প্যাকেজ রয়েছে। 

অ্যাকটিভ ইউডাে। Active Window

অনেকগুলাে ইউন্ডাের মাঝে সক্রিয় ইউন্ডােটি হচ্ছে সক্রিয় পর্দা বা Active window? মেকিনটোশ বা ইউন্ডােজ অপারেটিং সিস্টেমে একাধিক উইন্ডাে খােলা যায়। তবে একবারে একটির বেশি উইন্ডােকে সক্রিয় করা যায় না। 

অ্যাকটিভিটি লাইট। Activity Light

অনেক কম্পিউটার, মােডেম বা অন্যান্য আনুষঙ্গিক যন্ত্রে ছােট ছােট বাতির সাহায্যে কোনাে যন্ত্র, ডিস্ক ড্রাইভ, হার্ড ডিস্ক কর্ম সম্পাদনে সক্রিয় হচ্ছে কি না তা বােঝ যায়। এসব বাতি সক্রিয় না থাকা এসব যন্ত্রের নিস্ক্রিয়তা নির্দেশ করে। 

এক্সিলেরেটর বাের্ড। Accelerator Board

সাধারণত কম্পিউটার তার আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতিসহ সাধারণ গতিতেই চলে। অনেক সময় বিভিন্ন এপ্লিকেশন প্রােগ্রাম বা বিশেষ কোনাে কাজ সাধারণ গতির চেয়ে দ্রুত গতিতে করার প্রয়ােজন হয়। এক্সিলেরেটর বাের্ড সেই গতি বৃদ্ধির কাজ করে। এ ধরনের বাের্ড কম্পিউটারের এক্সপানশন স্লটে স্থাপন করা হয়ে থাকে। 

অ্যাবােট। Abort

আই.বি.এম. পি.সি-তে এই কমান্ড কোনাে চলমান কাজকে বন্ধ করার জন্যে ব্যবহার করা হয়। DOS কমান্ডে Esc বােম চেপে এবাের্ট কমান্ডের কাজ সম্পন্ন করা যায়। 

অ্যাবসােলিউট সেল রেফারেন্স। Absolute Cell Reference কোনাে ডেসিট প্রােগ্রামে বিশেষ একটি ফর্মুলাকে যে নির্দিষ্ট সেলের জন্যে প্রযােজ্য করা হয় তাকে অ্যাবসােলিউট সেল” বলে। যখন এই ফর্মুলা অন্য কোনাে সেলের জন্যে প্রযােজ্য করা হয় তখন তাকে ‘অ্যাবসােলিউট সেল রেফারেন্স’ বলা হয়ে থাকে।

এডা –  ADA

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের তৈরি একটি উচ্চ পর্যায়ের (High Level) প্রোগ্রামিংয়ের ভাষা (Programming Language){ সব রকমের সামরিক প্রােগ্রাম অ্যাপ্লিকেশনের জন্যে এডা (ADA) একটি অপরিহার্য প্রােগ্রামিংয়ের ভাষা। বিখ্যাত ইংরেজ কবি বায়রনের কন্যা এবং কম্পিউটারের জনক হিসেবে খ্যাত চার্লস ব্যাবেজের ঘনিষ্ঠ বন্ধু লেডি অগাস্টা অ্যাড়া বায়রনের নাম অনুসারে এ নামকরণ করা হয়েছে। অ্যাড়াকে পৃথিবীর প্রথম মহিলা কম্পিউটার বিজ্ঞানী’ বা প্রােগ্রামার হিসেবে ধরা হয়। সত্তরের দশকের প্রথম দিকে সামরিক কাজে ব্যবহারের জন্যে উপযুক্ত সিস্টেম উন্নয়নের জন্যে ৪ শতেরও বেশি প্রােগ্রামিংয়ের ভাষা (Programming Language) তৈরির লক্ষ্যে একটি কমিটি গঠন করা হয় । ১৯৮০ খ্রি. কমিটি তাদের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করে। কম্পিউটার বিজ্ঞানীরা অ্যাড়ার সমালােচনা প্রসঙ্গে বলে থাকেন যে, একটি মাত্র প্রােগ্রামিংয়ের ভাষা দিয়ে সকল কাজ করা যায় না। অ্যাড়া একটি বিশাল প্রােগ্রামিংয়ের ভাষা। এ ভাষার কম্পাইলারের জন্যে লক্ষাধিক কোড লাইন ব্যবহার করতে হয়। এজন্যে সমালােচকরা একে অনিয়ন্ত্রণযােগ্য বলে উল্লেখ করে থাকেন। তবুও অ্যাড়া এখনাে বেশ সার্থকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। অ্যাড়া এখন পার্সোনাল কম্পিউটারেও ব্যবহার করা যায়। কিন্তু পার্সোনাল কম্পিউটারে ব্যবহারের জন্যে অবশ্যই যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের অনুমােদিত কম্পাইলার বেছে নিতে হবে। 

অ্যাডাপটর। Adapter

অ্যাডাপটর হচ্ছে কম্পিউটারের সম্প্রসারণ বাস (Expansion Bus)-এর সঙ্গে সংযুক্ত একটি সার্কিট বোের্ড। কম্পিউটারের অতিরিক্ত বা বর্ধিত কাজের জনন্য অ্যাডাপটর ব্যবহৃত হয়। পার্সোনাল কম্পিউটারের কয়েকটি উল্লেখযােগ্য অ্যাডাপটর হচ্ছে প্রদর্শন অ্যাডাপটর (Display Adapter), স্মৃতি সম্প্রসারণ অ্যাডাপটর (Memory Expansion Adapter), ইনপুট-আউটপুট অ্যাডাপটর। এসব অ্যাডাপটরের বেশিরভাগই এখন কম্পিউটারের মাদারবাের্ডে সংযােজন করে দেওয়া হয় বা বিল্ট-ইন থাকে । 

এ.ডি.বি.। ADB

Apple Desktop Bus-এর সংক্ষিপ্ত রূপ হচ্ছে A.D.B., A.D.B. হচ্ছে সিরিয়াল বাস পাের্ট। মেকিনটোশ কম্পিউটারের পেছনে এ বাসের সংযােগ জ্যাক (Jack) থাকে। এ জ্যাকের সাহায্যে কম্পিউটারের সঙ্গে কী-বাের্ড, মাউস এবং অন্যান্য ডেস্কটপ বাস ডিভাইস, যেমন: গ্রাফিক্স ট্যাবলেট, হ্যান্ড কন্ট্রোলার, বিশেষ কী বাের্ড ইত্যাদি সংযুক্ত করা যায় । 

অ্যাডােবি ইলাস্ট্রেটর Adobe Illustrator

অ্যাডােবি ইলাস্ট্রেটর হচ্ছে মেকিনটোশ এবং আই.বি.এম. পিসিতে ব্যবহারযােগ্য পেশাদারি মানের অঙ্কন প্রােগ্রাম। ম্যাক পেইন্ট (Mac Paint) এবং ম্যাক ড্র। (MacDraw)-এর মাধ্যমে মেকিনটোশে অলঙ্কারণের কাজের যাত্রা শুরু হয়। এখন আরাে অনেক অগ্রসর এবং উন্নতমানের অলঙ্করণ বা ইলাস্ট্রেটর প্রােগ্রাম পাওয়া যায়। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *