তথ্য প্রযুক্তি

হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতি কাকে বলে? হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য কি কি?

যে সংখ্যা পদ্ধতির ভিত্তি ষােল তাকে হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতি বলে। হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতিতে অঙ্ক ১৬টি। ডেসিমাল বা দশমিক সংখ্যা পদ্ধতির দশটি অঙ্কের সাথে ইংরেজি বড় হাতের ছয়টি অক্ষর ব্যবহার করে হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা গঠন ও প্রকাশ করার রীতি প্রচলিত। হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতির ১৬টি অঙ্ক হচ্ছে ০, ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ৯, A, B, C, D, E, F। হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতি সাধারণ মানুষের কাছে বিশেষ পরিচিত নয়। তবে কম্পিউটার সিস্টেমে হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা ব্যবহার করা হয়। এর সব থেকে বড় সুবিধে হচ্ছে এক বাইটকে প্রকাশ করার জন্য হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতিতে ২টি হেক্সা ডেসিমাল সংখ্যা দরকার হয়।

 হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য 

  • হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা পদ্ধতির বেস হচ্ছে 16।
  • কারণ এ পদ্ধতিতে মোট 16টি মৌলিক চিহ্ন বা অঙ্ক আছে। যথা-  0, 1, 2, 3, 4, 5, 6, 7, 8, 9, 10 = A, 11 = B, 12 = C, 13 = D, 14 = E, 15 = F.
  • কম্পিউটার সিস্টেমে হেক্সাডেসিমাল সংখ্যা ব্যবহার করা হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button