ইসলাম

সাকিন কাকে বলে?

আরবী অক্ষরগুলোকে একটি হরফের সাথে আরেকটি হরফকে যুক্ত করতে যে চিহ্ন (٨) ব্যবহার করা হয় তাকে সাকিন বা জযম বলে।

বাংলায় (হসন্ত) দিয়ে যেভাবে উচ্চারণ করা হয়, সাকিনকে আরবীতে সেভাবে উচ্চারণ করা হয়।

আরবিতে এমন কিছু হরফ থাকে যাদের যের, যবর বা পেশ থাকে না। আগের হরফের সাথে যের, যবর, পেশ থাকে। এই যবর, যের ও পেশবিহীন হরফটি উচ্চারণের জন্য একটি চিহ্ন ব্যবহার করা হয়। এই ‘٨’ চিহ্নটিকে জযম বা সাকিন বলে।

সাকিন বা জযমের বিভিন্নরূপ

জযমযুক্ত নুনকে নুন সাকিন বলে। অর্থাৎ যে নুনের ওপর জযম ( ٨ ) থাকে তাকে নুন সাকিন বলে।

এ সম্পর্কিত আরও প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন:- নুন সাকিন কাকে বলে?

উত্তর:- জযমযুক্ত নুনকে সাকিন বলে। যথা-اَنْ – اِنْ -اُنْ

প্রশ্ন:- তানভীন কাকে বলে?

উত্তর:- দুই যবর, দুই যের, দুই পেশকে তানভীন বলে। যথা:-بً – بٍ – بٌ

প্রশ্ন:- নুন সাকিন ও তানভীন কয় নিয়মে পড়িতে হয়?

উত্তর:- চার নিয়মে পড়িতে হয়। যেমন:- (১) ইযহার (২) ইক্বলাব (৩) ইদগাম (৪) ইখফা।

প্রশ্ন:- ইযহার অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইযহার অর্থ স্পষ্ট করিয়া পড়া। ইযহারের হরফ ৬টি। যথা-: ء – ه – ع – ح – غ – خ

প্রশ্ন:- ইযহার কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পর ইযহারের ৬টি হরফ হইতে কোন একটি হরফ আসিলে, উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে গুন্নাহ ছাড়া স্পষ্ট করিয়া পড়া। যথা:- اَنْعمت – عليمٌ خببر

প্রশ্ন:- ইক্বলাব অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইক্বলাব অর্থ পরিবর্তন করিয়া পড়া। ইক্বলাবের হরফ একটি যথা:- ب

প্রশ্ন:- ইক্বলাব কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পরে ب হরফ টি আসিলে উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে ছোট মীম দ্বারা পরিবর্তন করে গুন্নাহ ও ইখফার সাথে পড়িতে হয়। যথা:- من بعد – سميع بصير

প্রশ্ন:- ইদগাম অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইদগাম অর্থ মিলাইয়া পড়া। ইদগামের হরফ ৬টি। যথা:- ي – ر – م – ل – و – ن

প্রশ্ন:- ইদগাম কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পরে ইদগামের ৬টি হরফ হইতে কোন একটি হরফ আসিলে উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে মিলাইয়া পড়িতে হয়। যথা:- منْ يفعل – منْ ربك

প্রশ্ন:- ইদগাম কত প্রকার ও কি কি?

উত্তর:- ইদগাম দুই প্রকার- (১) ইদগামে বা-গুন্নাহ (২) ইদগামে বে-গুন্নাহ।

প্রশ্ন:- ইদগামে বা-গুন্নাহ অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইদগামে বা- গুন্নাহ অর্থ গুন্নার সহিত মিলাইয়া পড়া। ইদাগামে বা- গুন্নার হরফ ৪টি। যথা:- ي – و – م – ن

প্রশ্ন:- ইদগামে বা-গুন্নাহ কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পরে ইদগামে বা-গুন্নার ৪টি হরফ হইতে কোন একটি হরফ আসিলে উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে গুন্নার সহিত মিলাইয়া পড়িতে হয়। যথা:- منْ يفعل – قومٌ مسرفون

প্রশ্ন:- ইদগামে বে-গুন্নাহ অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইদগামে বে-গুন্নাহ অর্থ গুন্নাহ ছাড়া মিলাইয়া পড়া। ইদগামে বে-গুন্নার হরফ ২টি। যথা:- ر – ل

প্রশ্ন:- ইদগামে বে-গুন্নাহ কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পরে ইদগামে বে-গুন্নার ২টি হরফ হইতে কোন একটি হরফ আসিলে উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে গুন্নাহ ছাড়া মিলাইয়া পড়িতে হয়। যথা:- رزقاًلكم – منْ ربك

প্রশ্ন:- ইখফা অর্থ কি? ইহার হরফ কয়টি ও কি কি?

উত্তর:- ইখফা অর্থ নাকের বাশিতে আওয়াজকে লুকাইয়া পড়া। ইখফার হরফ ১৫ টি। যথা:-ت – ث – ج – د – ذ – ز – س – ش – ص – ض – ط – ظ – ف – ق – ك

প্রশ্ন:- ইখফা কখন করিতে হয়?

উত্তর:- নুন সাকিন বা তানভীনের পরে ইখফার ১৫টি হরফ হইতে কোন একটি হরফ আসিলে, উক্ত নুন সাকিন বা তানভীনকে গুন্নার সহিত নাকের বাশিতে লুকাইয়া পড়িতে হয়। যথা:- لنْ تفعلو – خيرً كثير

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button