ইসলাম

সাওম কাকে বলে? সাওমের গুরুত্ব, তাৎপর্য ও নিয়ত।

আল্লাহ তায়ালার সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে সুবহে সাদিক থেকে শুরু করে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার ইত্যাদি থেকে বিরত থাকাকে সাওম বলে।

ইসলামের প্রধান পাঁচটি রুকনের মধ্যে সাওম একটি। সাওম ধনী-দরিদ্র সব মুসলমানের ওপর ফরজ। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘হে ইমানদারগণ! তোমাদের ওপর সিয়াম ফরজ করা হলো।’ (সূরা বাকারা, আয়াত : ১৮৩)।

সাওম পালনকালে মুমিন ব্যক্তি কু-প্রবৃত্তি, কামনা-বাসনা ও লোভ লালসা থেকে নিজেকে বিরত রাখে। সাওম পালনের মূল উদ্দেশ্য হলো তাকওয়া অর্জন করা। তাকওয়া মানে আল্লাহকে ভয় করা, সব রকম পাপ কাজ থেকে বিরত থাকা, সংযম অবলম্বন করা। সাওমের মাধ্যমে তাকওয়ার অনুশীলন ও প্রশিক্ষণ হয়ে থাকে। সর্বোপরি সাওম পালন উন্নত চরিত্র ও আদর্শ সমাজ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

সাওমের নিয়ত

রমজানের শেষ রাতে সেহরি খাওয়ার পর এই বলে সাওমের নিয়ত করতে হয়– ‘হে আল্লাহ! আমি আগামীকাল রমজান মাসের ফরজ সাওম রাখার নিয়ত করলাম। তুমি দয়া করে আমার সাওম কবুল করো।’

ইফতারের সময় বলতে হয়– ‘হে আল্লাহ! তোমারই জন্য সাওম রেখেছি এবং তোমার দেওয়া রিজিক দ্বারা ইফতার করছি।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button