অর্থনীতি

ব্যবসায়ের সংজ্ঞা কী? ব্যবসায়ের ধরন কত প্রকার ও কী কী?

ইংরেজি Business শব্দের বাংলা প্রতিশব্দ হলো ব্যবসায়। মুনাফা অর্জনের উদ্দেশ্যে পণ্যদ্রব্য ও সেবা উৎপাদন, বণ্টন ও এর সহায়ক সকল বৈধ কাজকেই ব্যবসায় বলা হয়।

নিম্নে ব্যবসায়ের উল্লেখযোগ্য সংজ্ঞা প্রদত্ত হলো :

  • বি ও হুইলার– এর মতে, “সমাজে পণ্য ও সেবা সামগ্রী সরবরাহ করে মুনাফা অর্জনের লক্ষ্যে সংগঠিত ও পরিচালিত প্রতিষ্ঠানকেই ব্যবসায় বলে।”
  • অধ্যাপক নরম্যান রিচার্ড ওয়েনস– এর মতে, “ব্যবসায় হলো এমন একটি প্রতিষ্ঠান যা বাজারে বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে পণ্যদ্রব্য উৎপাদন ও বণ্টন কার্যে অথবা মূল্যের বিনিময়ে সেবাদান কাজে নিয়োজিত থাকে।”
  • বি.বি. ঘোষ— এর মতে, “পণ্য সামগ্রী উৎপাদন অথবা বিক্রয়ের মাধ্যমে ধন সম্পদ অর্জনে নিয়োজিত মানুষের সকল কর্মপ্রচেষ্টাকে ব্যবসায় বলে।”

ব্যবসায়ের ধরন কত প্রকার ও কী কী?

ব্যবসায়ের ধরন তিন প্রকার। যথা :

১. ক্রয়-বিক্রয় জাতীয় ব্যবসা

২. সেবামূলক ব্যবসা এবং

৩. উৎপাদনমূলক ব্যবসা।

নিম্নে ব্যবসায়ের ধরন আলোচনা করা হলো :

১. ক্রয়-বিক্রয় জাতীয় ব্যবসা : তৈরি পণ্য উৎপাদক, পাইকার বা অন্য কোনো মধ্যস্থ ব্যবসায়ির কাছ থেকে পণ্য কিনে এনে ক্রেতাদের কাছে বিক্রয় করার মধ্যে সীমিত ব্যবসাকে ক্রয়-বিক্রয় জাতীয় ব্যবসা বলে। এ জাতীয় ব্যবসা খুচরা ও পাইকারি উভয় ভিত্তিতে পরিচালিত হয়। যেমন : মুদি দোকান, ঔষুধ ফার্মেসি, কাপড় ও মনিহারি দোকান ইত্যাদি।

২. সেবামূলক ব্যবসা : পণ্য বা দ্রব্যের গুণ পরিবর্তন করে কিংবা অন্য কোনো ধরনের সেবা প্রদানের মাধ্যমে আয় উপার্জনে নিয়োজিত ব্যবসাকে সেবামূলক ব্যবসা বলে। যেমন : হোটেল, রেস্টুরেন্ট, পরিবহন, ট্রাভেল এজেন্সি, ফটোকপি দোকান ইত্যাদি।

৩. উৎপাদনমূলক ব্যবসা : যন্ত্রপাতি ও প্রযুক্তির সাহায্যে কাঁচামালের আকৃতি ও প্রকৃতিগত পরিবর্তন সাধন করে নতুন পণ্য তৈরির কাজে নিয়োজিত ব্যবসায়কে উৎপাদনমূলক ব্যবসা বলে। এ জাতীয় ব্যবসায়ের মাধ্যমে কাঁচামালকে উৎপাদন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে রূপ পরিবর্তন করে উৎপাদিত পণ্য হিসেবে বাজারে বিক্রয় করা হয়। যেমন : কাঠ থেকে আসবাবপত্র তৈরি, গম থেকে আটা, আলমারি তৈরি, বলপেন তৈরি ইত্যাদি এ জাতীয় শিল্প।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button