আর্টিকেল

প্রাথমিক প্রতিবিধান (First Aid) কি? প্রাথমিক প্রতিবিধানের উদ্দেশ্য, পদ্ধতি ও উপকরণ।

প্রাথমিক প্রতিবিধান কি? (What is first aid in Bengali/Bangla?)

জীবনে চলার পথে মানুষকে অনেক সময় দুর্ঘটনার মুখোমুখি হতে হয়। এই দুর্ঘটনা মোকাবেলার জন্য প্রাথমিক প্রতিবিধান সম্পর্কে ধারণা থাকা আবশ্যক। সাধারণভাবে কোনো আহত ব্যক্তিকে সর্বপ্রথম যে সাহায্য বা সেবা প্রদান করা হয় তাই প্রাথমিক প্রতিবিধান। ইংরেজিতে এটি ‘First Aid‘ নামে পরিচিত। অর্থাৎ প্রাথমিক প্রতিবিধান হচ্ছে দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিকে ডাক্তার আসার পূর্ব পর্যন্ত যে প্রাথমিক সাহায্য করা হয় তাকেই প্রাথমিক প্রতিবিধান বলে। প্রাথমিক প্রতিবিধান জানা থাকলে দুর্ঘটনায় ক্ষতির পরিমাণ অনেক কমানো যায়।

প্রাথমিক প্রতিবিধান সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান থাকা জরুরি কেন?

দৃশ্যমান ও অদৃশ্যমান নানান রকম দুর্ঘটনা জীবনের গতিপথে সাময়িক বাধার সৃষ্টি করে। এসব দুর্ঘটনা নানানভাবে ঘটতে পারে। খেলাধুলা বা ব্যায়াম করার সময় আকস্মিকভাবে পায়ে ব্যথা পাওয়া, পা মচকে বা হাড় ভেঙ্গে যাওয়া, কেটে যাওয়ার মতো দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। এ সময় আহত ব্যক্তিকে প্রাথমিক প্রতিবিধান দিতে হয়। সেজন্য প্রাথমিক প্রতিবিধান সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান থাকা জরুরি।

প্রাথমিক প্রতিবিধানের উদ্দেশ্য

ডাক্তার আসার আগে বা হাসপাতালে স্থানান্তর করার আগে পর্যন্ত অসুস্থ ব্যক্তির প্রাণ রক্ষা করা, সুস্থ করার পথ সুগম করা এবং রোগীর অবস্থা যেন আরও খারাপ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে জীবনরক্ষার ভার নেয়াই হলো প্রাথমিক প্রতিবিধানের উদ্দেশ্য।

প্রাথমিক প্রতিবিধানের পদ্ধতি

১. দ্রুত অথবা ঠান্ডা মাথায় আগের কাজ আগে ও পরের কাজ পরে করতে হবে।

২. রোগীকে ঘটনাস্থল থেকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিতে হবে।

৩. রোগীর জ্ঞান আছে কিনা দেখতে হবে।

৪. শ্বাস-প্রশ্বাসে বিঘ্ন দেখা দিলে কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যবস্থা করতে হবে।

৫. রক্তক্ষরণ হলে তৎক্ষণাৎ বন্ধ করার চেষ্টা করতে হবে।

৬. শক দেখা দিলে তার প্রতিবিধান আগে করতে হবে।

৭. নাড়ির গতির প্রতি লক্ষ রাখতে হবে।

৮. রোগীর জ্ঞান না থাকলে শরীরের কাপড়-চোপড় আলগা করে দিতে হবে।

৯. রোগী ও তার সাথী বা সকলকে আশ্বাস ও সাহস দিতে হবে।

১০. দর্শক যেন বেশি ভিড় করতে না পারে তার ব্যবস্থা করতে হবে।

১১. পর্যাপ্ত আলো বাতাসের ব্যবস্থা করতে হবে।

১২. চোখের তারা অস্বাভাবিক কিনা, মুখ বিবর্ণ কিনা, মাথায় আঘাত আছে কিনা এবং রোগীকে উত্তাপ দিতে হবে কিনা এসবের দিকে লক্ষ রাখতে হবে।

১৩. যত শীঘ্র সম্ভব হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button