ইলেকট্রনিক্স

এলইডি (LED) কাকে বলে? এর সুবিধা, অসুবিধা এবং ব্যবহার।

এলইডির পুরো নাম Light Emitting Diode (লাইট ইমিটিং ডায়োড)। অর্থাৎ যে ডায়োডের মধ্য দিয়ে কারেন্ট প্রবাহিত হলে আলো নির্গত হয়, তাকে এলইডি (LED) বলে। এলইডির আলোর তীব্রতা এর প্রবাহিত কারেন্টের উপর নির্ভর করে। এটি হতে প্রাপ্ত আলো সাধারণত লাল, হলুদ এবং সবুজ রঙের হয়।

এলইডির সুবিধা-অসুবিধা

এলইডির সুবিধাসমূহঃ

  • এলইডি আকারে ছোট। কাজেই ডিসপ্লের কাজে কম জায়গায় অধিকসংখ্যক এলইডি ব্যবহার করা যায়;
  • এটি অপারেট করার জন্য খুব কম পাওয়ারের প্রয়োজন হয়;
  • এলইডি থেকে বিভিন্ন রঙের (যেমন : লাল, হলুদ ও সবুজ) আলো পাওয়া যায়;
  • সুইচিং টাইম খুব কম হয়;
  • এলইডির আলোর তীব্রতা খুব সহজেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়।
এলইডির অসুবিধাসমূহঃ
  • এটি শুধুমাত্র ফরোয়ার্ড বায়াসে কাজ করে;
  • এটি এসিতে ব্যবহার করা যায় না;
  • এর সর্বোচ্চ কারেন্ট ক্ষমতা 20mA হওয়ায় বেশি কারেন্টে ব্যবহার করা যায় না। এই অতিরিক্ত কারেন্ট এলইডির মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হলে যাতে নষ্ট না হয়, তার জন্য এলইডি সার্কিটে কারেন্ট লিমিটিং রেজিস্টার ব্যবহার করা হয়।
এলইডির ব্যবহার
এলইডির ব্যবহার নিম্নে দেয়া হলোঃ
  • রেডিও, টেপরেকর্ডার ও অ্যামপ্লিফায়ার ইত্যাদি অডিও সিস্টেম ইকুইপমেন্টে এলইডি ব্যবহৃত হয়;
  • ০ হতে ৯ পর্যন্ত সংখ্যাগুলোকে দৃশ্যমান করতে ইলেকট্রনিক মিটার ও ক্যালকুলেটরে এলইডি ব্যবহৃত হয়;
  • পাইলট ল্যাম্প হিসেবে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ইকুইপমেন্ট এবং সুইচ বোর্ডে এলইডি ব্যবহৃত হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button