প্রশ্ন ও উত্তর

অধ্যায়-১২ : ইন্সট্রুমেন্ট ট্রান্সফরমার, নবম-দশম শ্রেণির ভোকেশনাল

প্রশ্ন-১। কারেন্ট ট্রান্সফরমার কি ধরনের ট্রান্সফরমার?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমার এক প্রকার ইন্সট্রুমেন্ট ট্রান্সফরমার।

প্রশ্ন-২। কারেন্ট ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারিতে কারেন্ট সাধারণত কত ধরে এর ডিজাইন করা হয়?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারিতে কারেন্ট সাধারণত 5 Amp ধরে এর ডিজাইন করা হয়।

প্রশ্ন-৩। কারেন্ট ট্রান্সফরমারের প্রাইমারী কয়েলের প্যাঁচ সংখ্যা সেকেন্ডারী কয়েলের চেয়ে কম না বেশি থাকে?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমারের প্রাইমারী কয়েলের প্যাঁচ সংখ্যা সেকেন্ডারী কয়েলের চেয়ে বেশি থাকে।

প্রশ্ন-৪। কারেন্ট ট্রান্সফরমারকে সংক্ষেপে কি বলে?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমারকে সংক্ষেপে C.T বলে।

প্রশ্ন-৫। সিটির সেকেন্ডারী সাইডে এ্যামিটার, ওয়াট মিটার ও এনার্জিমিটার কিভাবে সংযোগ থাকে?

উত্তরঃ সিটি সেকেন্ডারী সাইডে অ্যামিটার সিরিজে ওয়াট মিটার ও এনার্জিমিটারের কারেন্ট কয়েল সিরিজে এবং প্রেসার কয়েল প্যারালালে সংযোগে থাকে।

প্রশ্ন-৬। কারেন্ট ট্রান্সফরমার কাকে বলে?

উত্তরঃ শুধুমাত্র কারেন্ট পরিমাপের জন্য Instrument এর সাথে যে Transformer ব্যবহার করা হয় তাকে কারেন্ট ট্রান্সফরমার বলে।

প্রশ্ন-৭। কারেন্ট ট্রান্সফরমারে প্রাইমারী প্যাঁচের সংখ্যা কত হয়?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমারে প্রাইমারি প্যাঁচের সংখ্যা কম হয়।

প্রশ্ন-৮। কারেন্ট ট্রান্সফরমারে সেকেন্ডারী প্যাঁচের সংখ্যা কত হয়?

উত্তরঃ কারেন্ট ট্রান্সফরমারে সেকেন্ডারী প্যাঁচের সংখ্যা বহুসংখ্যক হয়।

প্রশ্ন-৯। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার কী ধরণের ট্রান্সফরমার?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার এক ধরনের স্টেপ ডাউন ট্রান্সফরমার।

প্রশ্ন-১০। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারী ভোল্টেজ সাধারণত কত ধরে ডিজাইন করা হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারী ভোল্টেজ সাধারণত 110A ধরে ডিজাইন করা হয়।

প্রশ্ন-১১। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের প্রাইমারী কয়েলের প্যাঁচের সংখ্যা সেকেন্ডারী কয়েলের চেয়ে কম না বেশি হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের প্রাইমারী কয়েলের প্যাঁচের সংখ্যা সেকেন্ডারী কয়েলের চেয়ে বেশি হয়।

প্রশ্ন-১২। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারকে সংক্ষেপে কি বলে?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারকে সংক্ষেপে P. T বলে।

প্রশ্ন-১৩। পিটি সেকেন্ডারী সাইডে ভোল্টমিটার, ওয়াট মিটার ও এনার্জি মিটারের ইত্যাদির কী কয়েল সংযোগ থাকে?

উত্তরঃ পিটি সেকেন্ডারী সাইডে ভোল্টমিটার, ওয়াট মিটার ও এনার্জি মিটারের প্রেসার কয়েল প্যারালালে এবং কারেন্ট কয়েল সিরিজে সংযোগ থাকে।

প্রশ্ন-১৪। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার কী?

উত্তরঃ শুধুমাত্র Voltage পরিমাপের জন্য Instrument এর সাথে যে ট্রান্সফরমার ব্যবহার করা হয় তাকে পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার বলে।

প্রশ্ন-১৫। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের কাজ কি?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার সার্কিটের উচ্চ ভোল্টেজ পরিমাপের কাজে ব্যবহৃত হয়।

প্রশ্ন-১৬। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারে প্রাইমারি প্যাচের সংখ্যা কত হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারে প্রাইমারি প্যাচের সংখ্যা বহুসংখ্যক হয়।

প্রশ্ন-১৭। পোটনশিয়াল ট্রান্সফরমারে সেকেন্ডারী পোঁচের সংখ্যা কত হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারে সেকেন্ডারি প্যাচের সংখ্যা কমসংখ্যক হয়।

প্রশ্ন-১৮। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের কোন কয়েলে চিকন তারের বেশি প্যাঁচ থাকে?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের প্রাইমারীতে চিকন তারের বেশি প্যাঁচ থাকে।

প্রশ্ন-১৯। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারে হাই ভোল্টেজ কিভাবে পরিমাপ করা যায়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারী কয়েলের সাথে কম রেঞ্জের ভোল্টমিটার সংযোগ করে হাই ভোল্টেজ পরিমাপ করা হয়।

প্রশ্ন-২০। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের রেটিং কিভাবে প্রকাশ করা হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের রেটিং প্রাইমারি ও সেকেন্ডারী ভোল্টেজের অনুপাত দিয়ে প্রকাশ করা হয়।

প্রশ্ন-১৯। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার সেকেন্ডারীতে সর্বোচ্চ কত ভোল্ট ধরে এর অনুপাত নির্ধারণ করা হয়?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের সেকেন্ডারীতে সর্বোচ্চ 110 ভোল্ট ধরে এর অনুপাত নির্ধারণ করা হয়।

প্রশ্ন-২০। পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমারের কাজ কি?

উত্তরঃ পোটেনশিয়াল ট্রান্সফরমার সার্কিটের উচ্চ ভোল্টেজ পরিমাপের কাজে ব্যবহৃত হয়। এই ট্রান্সফরমারের সাহায্যে হাই ভোল্টেজকে কমিয়ে ব্যবহারযোগ্য ভোল্টেজে পরিণত করা হয় এবং এর সেকেন্ডারী কয়েলের সাথে সাধারণ রেঞ্জের ভোল্টমিটার সংযোগ করে ভোল্টেজ পরিমাপ করা হয়।

প্রশ্ন-২১। কারেন্ট ট্রান্সফরমারের সাহায্যে উচ্চ কারেন্ট কিভাবে পরিমাপ করা হয়?

উত্তরঃ শুধুমাত্র কারেন্ট পরিমাপের জন্য ইন্সট্রুমেন্টের সাথে যে ট্রান্সফরমার ব্যবহার করা হয়, তাকে কারেন্ট ট্রান্সফরমার বা সিটি বলে। কারেন্ট ট্রান্সফরমার ল্যামিনেটেড কোর দ্বারা তৈরি। কোরগুলো সিলিকন স্টীলের হয়ে থাকে। এর মধ্যে দু’টি কয়েল থাকে। একটি প্রাইমারী কয়েল এবং অপরটি সেকেন্ডারী কয়েল। প্রাইমারী কয়েল খুব মোটা তার দিয়ে তৈরি করা হয় এবং কমসংখ্যক প্যাঁচ থাকে। এটি লাইনের সাথে সিরিজে সংযোগ থাকে। কিন্তু সেকেন্ডারি কয়েল সরু হয় এবং বহুসংখ্যক প্যাঁচ থাকে। সেকেন্ডারী কয়েলের সাথে সিরিজে লো-রেঞ্জের এ্যামিটার সংযোগ হয় এবং সংযোগ প্রান্তের অপর প্রান্তটি আর্থিং করতে হয়। এ্যামিটারের রেঞ্জ 0-1A বা 0-5A পর্যন্ত হয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button